টিকা নিবন্ধনে ত্রুটি: শিক্ষার্থীদের এখন যা করতে হবে

0
253

শিক্ষার্থীদের টিকাদান শেষে হল ও বিশ্ববিদ্যালয় খোলা হবে বলে আগেই ঘোষণা দিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। সে লক্ষ্যে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের (ইউজিসি) পক্ষ থেকে শিক্ষার্থীদের তালিকা স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের ম্যানেজমেন্ট ইনফরমেশন সিস্টেমে (এমআইএস) জমা দেওয়া হয়। সম্প্রতি শিক্ষার্থীদের প্রথম ডোজের টিকাদান কর্মসূচি শুরু হয়েছে।

তবে অনেক শিক্ষার্থী টিকার জন্য নিবন্ধন করতে পারছেন না। তারা বলছেন, টিকার জন্য সুরক্ষা অ্যাপে নিবন্ধন করতে গিয়ে নানা সমস‌্যায় পড়তে হচ্ছে। বলা হচ্ছে, দুঃখিত আপনি টিকার জন্য নির্বাচিত নন।

এসব সমস্যার বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন থেকে পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় রেজিস্ট্রারদের কাছে চিঠি দেওয়া হয়েছে।

এতে বলা হয়েছে, টিকা সংক্রান্ত সুরক্ষা ডটকমে প্রবেশ করে শিক্ষার্থীদের টিকার জন্য নিবন্ধন করতে হবে। এর আগে গত ৩১ মে পর্যন্ত অগ্রাধিকার ভিত্তিতে টিকা দিতে বিশ্ববিদ্যালয়গুলো ১ লাখের বেশি শিক্ষার্থীর তালিকা স্বাস্থ্য অধিদপ্তরে পাঠানো হয়। যেসব আবাসিক শিক্ষার্থীদের সঠিক এনআইডি নম্বরসহ তালিকা স্বাস্থ্য অধিদপ্তরে পাঠানো হয়েছে তারাই সঠিকভাবে রেজিস্ট্রেশন করে টিকা নিতে পারছেন। কিন্তু যেসব আবাসিক শিক্ষার্থীর তালিকা সঠিক এনআইডি নম্বরসহ পাঠানো হয়নি তারা এখন রেজিস্ট্রেশন করতে পারবেন না।

তাছাড়া, বিশ্ববিদ্যালয়ের অনাবাসিক শিক্ষার্থীদের জন্য টিকা দেওয়ার সিদ্ধান্ত এখনও হয়নি। এক্ষেত্রে অনাবাসিক শিক্ষার্থীদের নিবন্ধনের বিষয়ে সরকার থেকে নির্দেশনা পেলে কমিশন থেকে যথাসময়ে বিশ্ববিদ্যালয়কে তা অবহিত করা হবে।

চিঠিতে ইউজিসি বলছে, করোনা টিকা গ্রহণের লক্ষ্যে সঠিক এনআইডি নম্বরসহ শুধু বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক শিক্ষক, গবেষক, কর্মকর্তা-কর্মচারী ও শিক্ষার্থীর (৪০ বছরের নীচে) তালিকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরে পাঠাতে বলা হয়। কিন্তু কয়েকটি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আবাসিক এবং অনাবাসিক সব শিক্ষার্থীর তথ্য সেখানে পাঠানো হয়। এখন শুধু আবাসিক শিক্ষার্থীরা সুরক্ষা অ্যাপে নিবন্ধন কার্যক্রম সম্পন্ন করতে পারবেন। অন্যরা আপাতত পারবেন না।

বিভিন্ন অসুবিধার কারণে কিছু আবাসিক শিক্ষার্থী যাদের এনআইডি নম্বরসহ তালিকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরে পাঠানো হয়নি। তাদের তথ্য না থাকায় অনাবাসিক শিক্ষার্থীরাও একই সঙ্গে নিবন্ধন করার চেষ্টা করছেন এবং নিবন্ধন করতে না পারার কারণে সমস্যার সৃষ্টি হচ্ছে।

এই সমস্যা সমাধানে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোকে যেসব ব্যবস্থা গ্রহণ করতে বলা হয়েছে সেগুলো হলো

১। সুরক্ষা অ্যাপে নিবন্ধন করার লক্ষ্যে শিক্ষার্থীরা যেন তার তথ্য সহজে নিশ্চিত হতে পারেন সে জন্য আবাসিক শিক্ষার্থীর (সঠিক এনআইডি নম্বরসহ) তালিকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ডিরেক্টর, এমআইএস, ডিজিএইচএসে পাঠানো হয়েছে। তা বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটে প্রকাশ করতে হবে।

২। যে সব আবাসিক শিক্ষার্থীর তালিকা (সঠিক এনআইডি নম্বরসহ) ইতিপূর্বে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে উক্ত প্রতিষ্ঠানে পাঠানো সম্ভব হয়নি তাদের তথ্য সংগ্রহ করে স্ব স্ব বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার এর দপ্তরে সংরক্ষণ করতে হবে। উল্লিখিত পত্রের নির্দেশনা ও ছক অনুযায়ী একত্রে করে (খণ্ড খণ্ড করে নয়) পরবর্তীতে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সংশ্লিষ্ট ই-মেইলে পাঠাতে হবে। অনাবাসিক শিক্ষার্থীদের নিবন্ধনের বিষয়ে সরকার থেকে নির্দেশনা পেলে কমিশন থেকে যথাসময়ে বিশ্ববিদ্যালয়কে তা অবহিত করা হবে।

৩। সব শিক্ষার্থী দিতে নিবন্ধন করানো নিজ নিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের দায়িত্ব। কাজেই রেজিস্ট্রার অথবা সংশ্লিষ্ট দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কেউ তার বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের নিবন্ধন করার ক্ষেত্রে সমস্যা (যদি থাকে) সমাধানের ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here