প্রিন্সের তিন ঘণ্টা ব্যাটিং তত্ত্ব ও লিটনের ঘুরে দাঁড়ানোর গল্প

0
96

ডোনাল্ড টিরিপানোর শর্ট বল পুল করে স্কয়ার লেগ দিয়ে সীমানার বাইরে পাঠালেন লিটন দাস; টিভি ধারাভাষ্যকার স্মরণ করিয়ে দিলেন এই মুহুর্তে কোনো ট্র্যাপে পড়া যাবে না! কারণ লিটন যে নার্ভাস নাইন্টিজের ঘরে!

এর আগে ৯৪ করে আউট হওয়ার তিক্ত অভিজ্ঞতা আছে তার। কিছুদিন আগে তামিম শ্রীলঙ্কায় ৯০ রানে আউট হয়ে সেঞ্চুরি বঞ্চিত হয়েছিলেন। ড্রেসিংরুমে থেকে লিটন সেই ঘটনার সাক্ষী ছিলেন। এবার কী তাহলে তার পালা! সেসব মাথায় ঘোরাফেরা করতে করতেই লিটন আউট। সত্যিই আউট…

একটি বাজে শটে চুরমার সেঞ্চুরির স্বপ্ন। টিরিপানোর পরের ওভারের প্রথম বল পুল করতে গিয়ে ফাইন লেগে ক্যাচ দিলেন। সামনে ডাইভ দিয়ে নাইউচির অসাধারণ ক্যাচ। সাদা পোশাকে লিটনের আরেকটি সেঞ্চুরি মিস! এবার থামলেন ৯৫ রানে।

বুধবার হারারে স্পোর্টস ক্লাব মাঠে টেস্টের প্রথম দিন যদি লিটনের ব্যাটিং বাংলাদেশ শিবিরের জন্য স্বস্তিদায়ক হয় আক্ষেপও কিন্তু এই লিটনই। একটু ধৈর্য্য কিংবা আরেকটু সংযত হলে পেয়ে যেতেন মর্যাদার টেস্ট ক্যারিয়ারের প্রথম সেঞ্চুরি। তবে নিজেকে হারিয়ে খুঁজতে থাকা লিটন যা করেছেন তাও কম কীসে!

অফ ফর্মের কারণে বাদ পড়েছিলেন শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ওয়ানডে দল থেকে। ঢাকা লিগে শুরুর দিকে ইনজুরির জন্য খেলতে পারেননি। যখন ফিরলেন তখনো নামের পাশে রান নেই। সেই লিটনই টেস্টের প্রথম দিনের নায়ক। যে সময় ব্যাটিংয়ে নেমেছিলেন তখন দল খাদের কিনারায়। তার মাঠে নামার কিছুক্ষণ পর ৬ উইকেট হারিয়ে বাংলাদেশের রান মাত্র ১৩২। সেখানে দেয়াল হয়ে দাঁড়ালেন লিটন। সঙ্গী পেলেন ১৬ মাস পর দলে ফেরা মাহমুদউল্লাহকে। দুইজনের ২৫৬ বলে ১৩৮ রানের জুটি দলকে নিয়ে যায় কাঙ্খিত পথে।

লিটনের অনবদ্য ৯৫ রানে ছড়িয়েছে মুগ্ধতা। যতক্ষণ ক্রিজে থাকেন ততক্ষণ ব্যাটিং জাদুতে আটকে রাখেন। বাহারি সব শট, পায়ের দারুণ প্রয়োগ, নিখুঁত টাইমিং ও প্লেসমেন্টে লিটন হয়ে উঠেন অনন্য। কিন্তু উইকেটে টিকে থাকার মানসিকতার অভাব তাকে ব্যাকফুটে ঠেলে দেয় বারবার। যেখান থেকে উঠে আসতে লাগে প্রচুর সময়।

সেই লিটন আজ নিজেকে শুধু ফিরেই পাননি দায়িত্বশীল ইনিংস খেলেছেন। কোনো ঝুঁকি না নিয়ে বলের মেধা অনুযায়ী শট নির্বাচন করেছে। তার এমনের পরিবর্তনের নেপথ্যে ছিলেন বাংলাদেশের নতুন ব্যাটিং পরামর্শক অ্যাশওয়েল প্রিন্স। সদ্য যোগ দেওয়া এ ব্যাটিং গুরু তার মানসিকতা পরিবর্তন আনতে, কোনো চিন্তা ও স্কোরবোর্ড দেখা ছাড়া ক্রিজে তিন ঘণ্টা ব্যাটিং করার পরামর্শ দিয়েছিলেন। তার বিশ্বাস ছিল, যদি লিটন তিন ঘণ্টা ব্যাটিং করতে পারে তাহলে রান চূঁড়ায় যাবে! অ্যাশওয়েল প্রিন্সের এ টোটকাই লিটন বাজিমাত করলেন।

দিন শেষে নিজেদের পরিকল্পনার কথা শোনালেন প্রিন্স, ‘আমি সপ্তাহ খানেক এই দলের সঙ্গে আছি। আমি মনে করি এই দলে খুব স্কিলফুল কিছু ক্রিকেটার আছে। লিটন তাদের একজন। ওর সঙ্গে আমার কথা হয়েছে, সে আমাকে বলেছে যে ৩০-৪০ রানে থাকার সময় সে উইকেট ছুঁড়ে আসে, মনসংযোগ হারিয়ে ফেলে।’

‘আমি তাকে বলেছি তুমি যদি তিন ঘণ্টা ব্যাটিং করো, কত রান বা অন্য কিছু ভুলে যাও তাহলে দেখবে সেঞ্চুরির কাছে চলে গেছ। এমনকি আজ যে সে ব্যাট করছিল আমি ঘড়ি দেখছিলাম। সে আজ তিন ঘন্টার কিছু বেশি সময় ক্রিজে ছিল, দুর্ভাগ্য সে সেঞ্চুরির কাছে গিয়েও সুযোগ হারাল। কিন্তু এটা থেকে সে ভাল কিছু শিখবে।’

দ্বিতীয় সেশনের ৭ ওভার না পেরোতেই সাকিব আল হাসান আউট হলে ক্রিজে আসেন লিটন। অফ সাইডে দুই ফিল্ডারের মাঝে দিয়ে অসাধারণ চারে খোলেন রানের খাতা। নাইউচির করা ওই ওভারের শেষ বলে আরও একটি লিটনীয় শট! ফ্রেমে বাঁধাই করে

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here