সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড থেকে বাঁচতে প্রবাসীর সংবাদ সম্মেলন

0
144

শারজার বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও বাংলাদেশ সমিতির শারজার সহ-সভাপতি মো. শাহাদাত হোসেনের বিরুদ্ধে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমসহ বিভিন্নভাবে মিথ্যা সংবাদ ও অপপ্রচার চালোনোর প্রতিবাদে ৬ জুলাই মঙ্গলবার রাতে সারজা জেএনপি নিজ অফিস কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করেছেন তিনি।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে মোহাম্মদ শাহাদাত হোসেন বলেন, দীর্ঘ ত্রিশ বছর যাবৎ সপরিবারে সংযুক্ত আরব আমিরাতে বসবাস করে আসছি। আমিরাতে শারজাহে একজন ইউজড কার অ্যান্ড স্পেয়ার পার্টস ব্যবসায়ী হিসেবে পরিচিতি লাভ করেছি এবং উক্ত সংগঠনের সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছি।

এছাড়া বাংলাদেশ সমিতির শারজা শাখার সহ-সভাপতিসহ দেশ ও প্রবাসের বিভিন্ন সামাজিক কর্মকাণ্ডের সঙ্গে যুক্ত রয়েছি। হাটহাজারী থানার মোহাম্মদপুর গ্রামের স্থায়ী বাসিন্দা আমরা পাঁচ ভাই দীর্ঘদিন যাবৎ প্রবাসে অবস্থান করছি।

আমাদের নিজ বাড়িতে আমার বৃদ্ধ মা ও চার ভাইয়ের পরিবার অবস্থান করছে। আমি অত্যন্ত দায়িত্বের সঙ্গে আমার পারিবারিক ও সামাজিক দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছি। আমি নিজেকে বাংলাদেশের একজন দায়িত্ব সম্পন্ন সুনাগরিক বলে মনে করি। এছাড়াও আমি একজন সফল রেমিটেন্স যোদ্ধা হিসেবে দেশের অর্থনীতি উন্নয়নে সহায়ক ভূমিকা রেখে যাচ্ছি। তারপরও অত্যন্ত দুঃখের সঙ্গে জানাতে হচ্ছে যে, গত ১ জুলাই বৃহস্পতিবার আমার নিজ গ্রামের বাড়িতে একটি নিন্দনীয় দুর্ঘটনা ঘটেছে।

বহিরাগত কিছু বিপথগামী মানুষ ডাকাতি, ভাঙচুর ও লুটপাটের প্রয়াসে আমার বাড়িতে হামলা করে। তারা ভাংচুরসহ আমার বাড়ি থেকে বেশকিছু নগদ অর্থ ও স্বর্ণালংকার আত্মসাৎ করে। লুটপাট ও ভাংচুরের পর এসব দুর্বৃত্তরা পলায়ন করতে গেলে স্থানীয় জনগণ ও প্রশাসনের প্রয়াসে কয়েকজন দুর্বৃত্ত ধরা পড়ে। এমতাবস্থায় আমি আমার পরিবার ক্ষতিগ্রস্ত হওয়া সত্ত্বেও আমার সামাজিক অবস্থানকে স্থানচ্যুত করার লক্ষ্যে কিছু অসৎ চরিত্র বিভিন্ন অপপ্রচারের মাধ্যমে আমার মান সম্মান হানি করার চেষ্টা করছে। ছোটখাটো কিছু পারিবারিক কলহকে কেন্দ্র করে আমার অনুপস্থিতিতে সুযোগ নেয়ার চেষ্টা করছে কিছু স্বার্থলোভী তৃতীয় পক্ষ।

তাদের প্রধান লক্ষ্য আমার মনোবল নষ্ট করে আমার সামাজিক কর্মকাণ্ড ব্যাহত করা। আরো কিছু এলাকার অসাধু চরিত্রের লোক আমার বৃদ্ধ মা ও কিছু আত্মীয় স্বজনকে প্ররোচিত করে স্বার্থোদ্ধারের চেষ্টা করছে এবং তাদের দ্বারা কৃত ঘৃণ্য অপরাধের দায়ভার আমার ওপর চাপানোর চেষ্টা করছে।

এ ব্যাপারে স্থানীয় প্রশাসনের মাধ্যমে সরকারের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন তিনি। তিনি আরও বলেন, আমার পরিবার আমার কাছে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। কোনো ধরনের মালামালের ক্ষয়ক্ষতি আমার কাছে মুখ্য নয়। আমি প্রশাসনের প্রতি ধন্যবাদ জ্ঞাপন করছি যে, তারা সঠিক সময়ে আমার পরিবারের কোনো ক্ষতি হওয়ার পূর্বেই তাদের দায়িত্ব পালন করেছে।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন- বাংলাদেশ সমিতি দুবাইয়ের আহ্বায়ক অধ্যাপক আব্দুস সবুর, সংগঠক মহিউদ্দিন মহিন, মহিউদ্দিন ইকবাল, আলম গফুর, মোহাম্মদ বদিউল আলম, তহিদুল আলম জিলানী, মোহাম্মদ আমিন, মোহাম্মদ আবু বক্কর, মীর কামালসহ বাংলাদেশি বিভিন্ন মিডিয়ার সাংবাদিকরা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here