Saturday, April 20, 2024
spot_img
Homeজাতীয়ভবনে কার্পেট-কাপড়ের গোডাউন, ছিল না জানালা

ভবনে কার্পেট-কাপড়ের গোডাউন, ছিল না জানালা

রাজধানীর এলিফ্যান্ট রোডে হাতিরপুল বাজারের পাশে ‘রাজ কমপ্লেক্স’ নামের ছয়তলা ভবনের আগুন নিয়ন্ত্রণে এসেছে। ফায়ার সার্ভিসের সাতটি ইউনিটের আড়াই ঘণ্টার চেষ্টায় বৃহস্পতিবার রাত ৮টা ৩৭ মিনিটে আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে। বাংলাদেশ নৌবাহিনীর দুটি ইউনিটও আগুন নিয়ন্ত্রণে যোগ দিয়েছিল। এখন পর্যন্ত ৭-৮ জন লোককে ওপর থেকে জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে। কোনো হতাহতের তথ্য পাওয়া যায়নি।

ফায়ার সার্ভিসের মিডিয়া কর্মকর্তা আনারুল ইসলাম দোলন জানান, সন্ধ্যা ৬টা ৪ মিনিটে আগুন লাগার খবর পায় ফায়ার সার্ভিস। ফায়ারের ১ম ইউনিট ৬টা ১৩ মিনিটে ঘটনাস্থলে পৌঁছে কাজ শুরু করে। পরে একে একে আরও ছয়টি ইউনিট যোগ হয় আগুন নিয়ন্ত্রণে।

আগুন নিয়ন্ত্রণে আসার পর ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের সহকারী পরিচালক মো. আনোয়ারুল হক বলেন, ওই ভবনটি কার্পেট ও কাপড়ের গোডাউন হিসেবে ব্যবহৃত হতো। চার তলায় শুধু একটি পরিবার থাকত। পৈতৃক সূত্রে পাওয়া ফ্ল্যাটে খুকুমণি তার মা ও দুই ছেলেকে নিয়ে থাকতেন। আগুন লাগার প্রায় আধা ঘণ্টা পর ভবনের ছাদ থেকে তাদের সবাইকে জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে। আগুন লাগার কারণ এখনও নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

তিনি জানান, ভবনজুড়ে ছিল কার্পেটের গোডাউন। ভবনের যেই কক্ষে আগুন লেগেছে তার চারপাশে কোনো জানালা নেই। এতে দেয়াল ভেঙে ভেতরে প্রবেশ করতে হয়েছে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীদের।

‘রাজ কমপ্লেক্সের’ বাসিন্দা খুকু মণি বলেন, ইফতারের আগ মুহূর্তে সবকিছু প্রস্তুত করছিলাম। হঠাৎ পোড়া গন্ধ পেয়ে জানালা দিয়ে তাকিয়ে দেখিয়ে নিচ থেকে ধোঁয়া উঠছে। সব কিছু ফেলে রেখে দুই সন্তান ও মাকে নিয়ে কোনো রকমে ওপরের দিকে উঠে যাই। পরে ছাদের দরজার তালা ভেঙে সেখানে আশ্রয় নেই।

তার ছেলে ফিদাক হোসেন বলেন, ইফতারের ঠিক ৫ মিনিট আগে বাইরে থেকে চিৎকার-চেঁচামেচির শব্দ পাই। পরে ফ্লাটের দরজা খুলে দেখি পুরো ভবন ধোঁয়ায় ভরে গেছে। শ্বাস নিতে কষ্ট হচ্ছিল। বাইরে থেকে সবাই নিচে নেমে আসার জন্য বললেও নিচে আসার মতো অবস্থা ছিল না। পরে সবাই ছাদে গিয়ে আশ্রয় নেই।

তিতাসের জরুরি গ্যাস নিয়ন্ত্রণ টিমের লিডার আব্দুস সালাম জানান, অগ্নিকাণ্ডের খবর পেয়ে ভবনের সব গ্যাস সংযোগ বন্ধ করে দেওয়া হয়, যাতে ভবনে আগুনের তীব্রতা বাড়তে না পারে।

RELATED ARTICLES

Leave a reply

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -
Google search engine

Most Popular

Recent Comments